শুক্রবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

অন্ধকারে আলোকিত আমি সাদা কালো


একদিন চাঁদ রাতে, ঘুম ছিলনা দুটি আঁখিপটে, আলোয় আলোয় আলোকিত চারিপাশ;
বাহিরে তুমুল ঘ্রাণ অনুভবে ব্যাকুল ছিল আমার প্রতিটি নি:শ্বাস |

জোছনার ছড়াছড়ি ধূলি ধূসরিত আঁধার রঙা মেঠোপথ জুড়ে ছিল আলোছায়ার খেলা,
নি:সীম নিরবতায় কেউ নেই,শুধু আমি আর চন্দ্রিমা,পার করেছিলাম সেই মরিচিকা বেলা |

ঝাঁক বেঁধে জোনাকিরা মেতে ছিল উল্লাসে দীঘির পাড় ঘেসা চোরাকাঁটা ফুলঝাড়ে,
এখানেই চাঁদ আর জোনাকির অপরূপ মিতালী ক্লান্ত নয়নদ্বয়ের ঘুম কাড়ে |

ঝিঁ ঝিঁ ডাকা সেই রাতে টুপ টুপ ঝরে পড়া শেফালিরা কোথায় যেন ভেঙে চলেছিল নিরবতার পিন পতন,
ঘুমন্ত ধরার বুকে তাই মাঝ রাতে বেজেছিল শেফালির আর্তনাদের সাথে ঝিঁঝিঁর কীর্তন |

রাতজাগা বিহঙ্গরা ডানা ঝাপটে ঘুরেছিল এ ডাল ও ডাল প্রিয় সঙ্গীর প্রণয় সুখে,
মাধবীরা জেগে ছিল চুপিসারে আলোক সুধা পানের লোলুভ দৃষ্টি রেখে |

হঠাৎ যেন হরষে বিষাদের ছায়া বিদীর্ণ করেছিল সেই রাতের হৃদয়ের স্পন্দন,
রাত্রি গভীরকালে বহুদূর হতে ভেসে আসা নি:সঙ্গ কোন এক শৃগালের করুণ ক্রন্দন |

সেই হৈমন্তি রাতে ঝরে পড়া শিশির গড়েছিল ঘাসের চূড়ায় হিরক বাতির ঝাঁড় ,
দূর হতে তাই দিয়েছিল হাতছানি অপরূপ ঝলমলে বয়ে চলা এক নদীর পাড় |

নদীর চকচকে জলে দেখি কার যেন প্রতিচ্ছবি কেঁপে কেঁপে ভেসে ভেসে যায় কূল কূল রবে,
রাত্রি গভীর যত মাতাল হাওয়ারা তত এলোমেলো ছুঁয়ে যায়,গেয়ে যায় সেই গান কোন এক মাঝি গেয়েছিল যেন কবে |

সেই একদিন চাঁদ রাতে ব্যথা ছিলনা অন্তর ঘাটে,ছিল শুধু মধুময় স্মৃতির প্রহর,
আজও তাই অমলিন, মনে আছে সবকিছু,সে রাতের প্রতিটি দেখায় লাগিয়েছি সীলমোহর |

ঘুমিয়ে থাকা রবি জানেনিতো সেই কথা, যেকথা জেগেছিল রাত্রির বুক চিরে,
সেই একদিন চাঁদ রাতে জেগে থাকা চাঁদ আর জেগে থাকা আমি বসেছিলাম নদী তীরে শুধুই মোর সুধার খোজ করে...
মৌটুশী মোর বেচে আছে কেমন করে...

জীবনের অর্থ...



ঠিক ঠাক ভাবে চলা জীবন কেন জানি কিছু সময় নিজের অজান্তে
এলমেলো হয়ে যায়।ঠিক বুঝে উঠতে পারিনা কেন এমন হয়। মনের মাঝে কোথাও হিম ভারি কোয়াশা জমাট ধোয়ার মতো করে উড়ে বেড়াচ্ছে।নীল আকাশ টা কেন জানি হঠাৎ করে ধুসুর ঘন কালো মেঘ ডাকা পড়ে গেছে । কিছুই ভাল লাগেনা তখন । মনে হয় আমি নিজে আর আমার আশে পাশে সব কিছু এলোমেলো হয়ে গেছে। । মাঝে মাঝে মানুষের জীবনটা কেন এলোমেলো হয়েও যায় এই প্রশ্নেটা আমাকে অনেকে ভাবিয়েছে। ...
কিন্তু ভেবে কি হবে , এলোমেলো হওয়া টাই তো জিবনের নিয়ম। জীবন তো জীবন নিয়ম চলবে...

কেউ বলে জীবন মানে যন্ত্রণা, কারো মতে সুখ,

জীবন মানে কষ্ট, বলে কেউ কান্নায় ভাসিয়ে বুক ।

জীবন মানে মিছিল মিটিং, আন্দোলন আর ক্ষমতা,

এই মতামত পোষণ করেন সকল রাজনীতিকরা ।

জীবনের সঙ্ঘা দেয় ছিনতাইকারী আর চাঁদাবাজ,

গোলাগুলি,বোমাবাজি এই ছাড়া আর কি কাজ ।

জীবন মানে মুচকি হাসি, চোঁখে চোঁখ একটু ছোঁয়া,

শরীরে শিহরন, বুকে জড়িয়ে সোহাগ করা ;

জীবন মানে পাগলামি, হার-জিতের বাজি ধরা,

মতামত দিয়ে থাকেন টিনএজ তরুণ-তরুণীরা ।

জীবন হলো কবিতা, উপন্যাস আর গল্প,

ফুল পাখি আর প্রজাপতি, সুখ খুবই স্বল্প ;

চন্দ্র সূর্য গ্রহ তারা, মেঘমালা আর বৃষ্টি,

জীবন মানে সাহিত্য কর্ম, নতুন কিছু সৃষ্টি ।

জীবন মানে মনুষত্য, মনের শুভ দিক,

এসব কথা বলে থাকেন কবি-সাহিত্যিক ।

জীবন মানে তোষামোদি, হুজুর হুজুর প্রলাপ,

জীবন মানে স্বার্থসিদ্ধি, সুবিধাবাদীর মতামত ।

জীবন মানে হৃৎপিন্ড, স্পন্দন- ধুক ধুক,

এইডস আর ক্যানসার, মৃত্যুর যন্তণা ভোগ ।

বৃদ্ধ-বৃদ্ধা দিয়ে থাকেন জীবনের সঙ্ঘা-

জীবন মানে একাকীত্ব, অতীত স্মৃতি আর ব্যর্থতা...
জীবন মানি কিছু বলা কিছু না বলা গান,

জীবন মানে কষ্ট পেয়ে একটু অভিমান।

জীবন মানে কিছু সুখ আর কিছু হাসি ।
জীবন মানে দুঃখ কষ্ট দুটাই পাশাপাশি।

জীবন মানে কিছু স্বপ্ন কিছু মিথ্যা আশা।
জীবন মানে নিজের থেকে বড় কিছু প্রত্যাশা।

জীবন মানে মান অভিমানের ছোট্ট ভালবাসা ।
জীবন মানে পাওয়া জিনিস না পেয়ে হয়ে যাওয়া হতাশা।

জীবনে মানে রঙ্গ মঞ্চের সবি বুঝি অভিনয়।
প্রহরে প্রহরে শুধ হয় মানুষের সাথে হয় নব পরিচয়।

অভিনয় করতে করতে একসময় জিবনের শেষ হয় ।
ভাল কিছু করলে সেটাই সুধু পৃথিবীতে রয়,
জিবনের মানে এই ছাড়া আর কিছু নয় ।
জীবন মানে যন্ত্রণা অনলে দহন । জীবন মানে শূন্যতা নিশার স্বপন । জীবন মানে ব্যর্থতা অরণ্যে রোদন । জীবন মানে অশান্তি আত্মসমর্পন । জীবন মানে যুদ্ধ অনবরত বোমাবর্ষন । জীবন মানে ষড়যন্ত্র বিপদে পলায়ন । জীবন মানে অভাব স্বভাবে পরিবর্তন । জীবন মানে দুঃখ কষ্ট প্রাণ বিসর্জন ।
জীবনের সঙ্ঘা দিয়েছেন হুমায়ূন আহমেদ এই ভাবে...
জীবনে সুখের চেয়ে দুঃখের মুহূর্ত
বেশি...সুখটা ক্ষণস্থায়ী,
দুঃখটা দীর্ঘস্থায়ী ।
দুঃখটা কে অনুভব করার জন্যই জীবনে সুখের
আবির্ভাব ।
বিচিত্র জীবন টায় দুঃখ আছে বলেই
হয়তো সুখটা এত মধুর ।

জীবনের অর্থ বুঝতে গিয়ে জানতে পারলাম অনেক কীছু যা হাজার সত্য হলেও আমাদের জীবনে পূর্নাঙ্গ রুপ দেয়াটা বড়ই কষ্টকর।খুবই বাস্তব সত্য, মানুষের স্বাভাবিক প্রবৃত্তি ই হলো, বিশ্বাস-ভালবাসা-আশা কোন কিছুতেই কোন সীমাবদ্ধতা নেই, তাই আমাদের কষ্টের লাগামটারও সীমারেখা আঁকা যায় না।


জীবনের প্রতি মানুষের মায়া অপরিসীম, জীবনকে ভালোবাসে
বলেই এত দুঃখ-কষ্ট সংগ্রামের
মধ্যেও মানুষ বেচেঁ থাকে |

___ জর্জ হারবার্ট